হোসেন আলী এখন করাগারে ইয়াবা বিক্রি করে স্ত্রী ও ছেলে

0

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি :

দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা ও হেরোইন সহ বিভিন্ন ধরনের মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকায় পাবনার ভাঙ্গুড়ায় কুখ্যাত মাদক সম্রাট হিসেবে পরিচিত হোসেন আলী (৪৫)। এ পর্যন্ত তিনি নয়টি মাদক মামলার আসামি হয়ে জেল খেটেছেন। একটি মামলায় গত ছয় মাস ধরে তিনি পাবনা জেল হাজতে রয়েছেন। তবে তার মাদক ব্যবসা থেমে থাকেনি। তার অবর্তমানে স্ত্রী আজিরন খাতুন (৩৮) ও ছেলে আশিক ইসলাম (২০) মাদক ব্যবসা সচল রাখেন। তাই মাদক ব্যবসায়ী মা ও ছেলেকে ধরতে থানা পুলিশ অত্যন্ত সতর্কতার সাথে বেশ কিছুদিন ধরে অনুসন্ধান চালাচ্ছিলেন। অবশেষে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে এগারোটর দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের নৌবাড়ীয়া গ্রামের নিজ বাড়িতে অভিযান চালিয়ে আজিরন ও তার ছেলে আশিককে ১১৫ পিস ইয়াবাসহ আটক করে থানা পুলিশ। ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন। এদিকে একটি মাদক ব্যবসায়ী পরিবারের সকল সদস্য আটক হওয়ায় খুশি এলাকার সাধারণ মানুষ।

 

জানা যায়, উপজেলার সদর ইউনিয়নের নৌবাড়ীয়া গ্রামের বাসিন্দা হোসেন আলী দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। সে ভাঙ্গুড়া ও চাটমোহর উপজেলার খুচরা মাদক বিক্রেতাদের ইয়াবাসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক দ্রব্য সরবরাহ করে। মাদক সরবরাহ করার সময় সে এর আগে ৯ বার পুলিশের হাতে আটক হয়েছে। কিন্তু আটকের কিছুদিন পরেই তিনি জামিনে বের হয়ে এসে পুনরায় মাদক বিক্রি শুরু করেন।  এতে হোসেন আলী প্রত্যেকবার জেলে থাকায় তার স্ত্রী আজিরন ও ছেলে আশিক স্থানীয় মাদক কারবারীদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে মাদক সরবরাহ করেন। এর আগে আশিক মাদকসহ চাটমোহর থানা পুলিশের হাতে আটক হয়। এ অবস্থায় গত বছরের অক্টোবর মাসে হোসেন আলী ভাঙ্গুড়া বাস স্ট্যান্ড থেকে মাদক সহ পুলিশের হাতে আটক হয়ে বর্তমানে জেলে রয়েছে। তাই হোসেন আলীর অবর্তমানে তাঁর স্ত্রী ও ছেলে স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কারবার চালিয়ে যাচ্ছিল। এরপর জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ মাদক ব্যবসায়ী আজিরন ও তার ছেলে আশিককে ধরতে বেশ কিছুদিন ধরে অনুসন্ধান চালাচ্ছিলেন। এরই প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের নৌবাড়ীয়া গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। এই অভিযানে তাদের কাছ থেকে ১১৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে পুলিশ।

 

ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, মাদকের বিষয়ে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ সবসময় কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে হোসেন আলীর পরে তার স্ত্রী ও ছেলেকেও মাদকসহ আটক করা হয়। উভয়ের বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

Share.

Leave A Reply