স্মৃতি মান্ধানার এগিয়ে চলার গল্প

0

এফএনএস স্পোর্টস: ক্রিকেটার হওয়া ছাড়া তার যেন কিছুই করার ছিল না! ক্রিকেট পরিবারেই জন্ম, তার বাবা ও বড় ভাই দুজনই ক্রিকেট খেলেছেন। তবে দৌড় ছিল শুধু রাজ্য পর্যন্তই। কিন্তু এই পরিবারের মেয়েটি যে রাজ্য ছাড়িয়ে দেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন কে জানতো? স্মৃতি মান্ধানা-ভারতীয় ক্রিকেটের সেনসেশন! মহারাষ্ট্রের সাংলি ছাড়িয়ে গোটা ক্রিকেট বিশ্বের চেনা মুখ তিনি। কথায় আছে সুন্দর মুখের জয় সর্বত্র। আর সঙ্গে যদি প্রতিভার যোগ হয়, তাহলে তো কথাই নেই। ঠিক তাই হচ্ছে স্মৃতির জীবনে। সাফল্য ধরা দিচ্ছে একের পর এক। ১৯৯৬ সালের ১৮ জুলাই, মুম্বাইয়ে জন্ম ভারতীয় নারী দলের এই ক্রিকেটারের।  বড় ভাইয়ের খেলা দেখে ক্রিকেটের প্রতি ভালোবাসা জন্মে মান্ধানার। ক্রিকেটটা যেনো তার কাছেই ধরা দিয়েছিল মাত্র ১১ বছর বয়সেই মুম্বাই অনূর্ধ্ব ১৯ দলের জন্য নির্বাচিত হন। জাতীয় দলের জন্য নির্বাচিত হন ২০১৪ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে প্রথম টেস্টেই নিজের পরিচয়ের জানান দিয়েছিলেন মান্ধানা ২য় ইনিংস এ করেন অর্ধশত রান। এর আগে ২০১৩ সালে টি-টোয়েন্টি ও পরের বছর একদিনের ম্যাচে অভিষেক হয় মান্ধানার।২০১৬ তে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওভালে বাজিমাত ১০৯ বলে ১০২ রানের ইনিংস টা যেনো আজ ও ভেসে বেড়ায় ভক্ত শুভাকাক্সক্ষীদের চোখে। সে বছরই স্মৃতি মান্ধানা প্রথম নারী ক্রিকেটার হিসেবে আইসিসি ওমেন টিম অব দ্যা ইয়ার -এ জায়গা করে নেন। তারপরই অন্ধকারের কালো মেঘ নেমে এলো মান্ধানার জীবনে বিগব্যাশ লিগে লিগামেন্টের চোটের কবলে পড়েন তিনি। তাকে ছাড়া যে বড্ড বেমানান ভারতীয় নারী টিম। ক্রিকেট দেবতা ও তার হাত থেকে ব্যাট কেড়ে নেওয়া মেনে নিতে পারেনি। অবশেষে মান্ধানা ফিরে আসেন দীর্ঘ ৫ মাস পর।  ২০১৭ মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপের প্রত্যাবর্তনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেন ৯০ রানের দারুণ এক ইনিংস। তারপর উইন্ডিজের বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজের প্রথম শতকের পর ব্যাট উঁচু করে জানান দিলেন ক্রিকেটটা তার, আর তিনি ক্রিকেটের জন্যই। সাবেক কিউই তারকা ক্রিকেটার স্কট স্টাইরিস মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চলাকালীন সময় বলেই দিলেন ‘মেয়েদের ক্রিকেটে বিরাট কোহলি হলো মান্ধানা। উইন্ডিজের কিংবদন্তি স্যার ভিভ রিচার্ডস বদলে দিয়েছিলেন পুরুষদের ক্রিকেটের ছবি ব্যাট হাতে দেখিয়েছেন তার দৃষ্টান্ত,প্রতিপক্ষের বোলিংয়ের আতঙ্কের কারণ হয়ে  ক্রিজে দাঁড়িয়ে থাকতেন। ভিভের মতোই হতে পারে মান্ধানা।’ কতো ক্রিকেটারই তো ক্রিকেট ক্যারিয়ারে নিজের নৈপূন্য দেখিয়ে নাম লিখিয়েছেন ক্রিকেটের রেকর্ড বোর্ডে। একজনের রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলেন আবার আরেকজন। ২০২১ এর প্রথমের দিকে ভারতীয় নারী দলের সঙ্গে সিরিজ খেলতে আসে দক্ষিণ আফ্রিকার নারী দল।ঘরের মাঠে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে ৬৪ বলে ৮০ রানের এক বিধ্বংসী এক ইনিংস খেলে স্মৃতি মান্ধানা আর এই ইনিংস অন্য এক উচ্চতায় পৌঁছে দেয় মান্ধানাকে।  ওয়ানডে ম্যাচে এ পর্যন্ত ৫৯ ম্যাচে ৪১.৭২ গড়ে ২২৫৩ রান করেছেন স্মৃতি মান্ধানা। চারটি শতক ও ১৮টি অর্ধশতক রয়েছে। একদিনের ম্যাচে তার ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান ১৩৫। ৩ টেস্ট আর ৮১টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচও খেলে ফেলেছেন এই ব্যাটসওম্যান। বয়স মাত্র ২৫। এখন তো এগিয়ে যাওয়ারই পালা!

 

Share.

Leave A Reply