সর্বকালের সেরা ওয়ানডে দল বানিয়ে চমক দিলেন শোয়েব

0

এফএনএস স্পোর্টস: আবারও শুরু হয়েছে পছন্দের একাদশ বাছাই করার খেলা। এই খেলায় এবার যোগ দিলেন পাকিস্তানের সাবেক স্পিডস্টার শোয়েব আখতার। ক্রিকেট ছাড়ার পরও শোয়েব নিয়মিতই আলোচনায় আছেন। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে ক্রিকেটের বিভিন্ন বিষয়ে তাকে মতামত দিতে শোনা যায়। তিনি এবার বেছে নিয়েছেন ওয়ানডে ক্রিকেটের সর্বকালের সেরা একাদশ। কিন্তু সেই দলে নেই বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা। বাদ পড়েছেন সৌরভ গাঙ্গুলী, রিকি পন্টিংয়ের মতো বিশ্বসেরা ক্রিকেটার। নেই ইমরান খানের মতো অধিনায়ক। দেখে নেওয়া যাক শোয়েবের বাছাই করার একাদশ।

১. গর্ডন গ্রিনিজ: বাংলাদেশের ক্রিকেটে কোচ হিসেবে অসামান্য অবদান রেখেছিলেন গর্ডন গ্রিনিজ। শোয়েব যে সময় ক্রিকেট খেলছেন ততদিনে এই ক্যারবীয় গ্রেট অবসরে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই ক্রিকেটার ১২৮টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন। ১১টি সেঞ্চুরিসহ ৪৫.০৩ গড়ে তার সংগ্রহ ৫১৩৪ রান।

২. শচীন টেন্ডুলকার: গর্ডনের ওপেনিং সঙ্গী মাস্টার ব্লাস্টার শচীন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শোয়েব এবং শচীনের লড়াই ছিল আকর্ষণের শীর্ষে। কখনও শচীন রান করেছেন, কখনও তার উইকেট নিয়েছেন শোয়েব। সর্বকালের সেরা একাদশে ওপেনার হিসেবে শচীনকেই বেছে নিয়েছেন তিনি।

৩. ইনজামাম উল হক: তিনে ব্যাট করতে নামবেন শোয়বের সাবেক অধিনায়ক ইনজামাম। ব্যাট হাতে ইনজামামের ওপর ভরসা রাখলেও শোয়েবের দলের অধিনায়ক কিন্তু অন্য ক্রিকেটার।

৪. সাঈদ আনোয়ার: শোয়েবের দলে আরও এক পাকিস্তানি ক্রিকেটার হলেন সাঈদ আনোয়ার। তবে বিধ্বংসী ওপেনার হিসেবে খ্যাত সাঈদকে চার নম্বরে ব্যাট করতে পাঠাবেন শোয়েব। শোয়েবের মতে, ‘এখনকার যুগে সাঈদ ভাই মিডল অর্ডারে নামলে বোলারদের ¯্রফে খুন করে ফেলতেন।’

৫. মহেন্দ্র সিং ধোনি: এই পজিশনের জন্য ভারতের সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির বিকল্প পাননি শোয়েব। দুটি বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক তিনি। তবে শোয়েবের দলে সেই দায়িত্ব তার কাঁধে নেই। মিডল অর্ডারে ঝড় তোলার জন্যই আসলে ধোনিকে দলে নিয়েছেন শোয়েব। সঙ্গে পালন করতে হবে উইকেটরক্ষকের দায়িত্ব।

৬. অ্যাডাম গিলক্রিস্ট: শোয়েবের দলে আছে আরও এক উইকেটরক্ষক। তিনি অজি কিংবদন্তি অ্যাডাম গিলক্রিস্ট। যদিও তাকে কিপিং করতে হবে না। কারণ ধোনিই আছেন সেই দায়িত্বে। গিলক্রিস্টের কাজ হবে ‘ফিনিশারের’ দায়িত্ব পালন।

৭. যুবরাজ সিং: পাঞ্জাবের এই অল-রাউন্ডার সহজেই শোয়েবের দলে জায়গা করে নিয়েছেন। সাত নম্বর পজিশনে ২০১১ বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটারকে বাদ দেওয়ার কথা ভাবতে পারেননি শোয়েব। আর যে কোনো পজিশনে ব্যাট হাতে ঝড় তুলতে জুড়ি নেই ৬ বলে ৬ ছক্কার মালিক যুবরাজের।

৮. ওয়াসিম আকরাম: শোয়েবের দলে পেস আক্রমণের নেতৃত্ব দেবেন ‘সুলতান অব সুইং’ ওয়াসিম আকরাম। সাবেক এই বাঁহাতি পেসারের সঙ্গে জুটি বেঁধে বহু দলের দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছিলেন শোয়েব। সেই আকরামকে দলে রেখেই তৈরি করেছেন তার পেস আক্রমণ।

৯. ওয়াকার ইউনিস: একসময় পুরো ক্রিকেটবিশ্বের ত্রাস ছিলেন ওয়াসিম-ওয়াকার পেস জুটি। শোয়েবের একাদশে সেই জুটি না থাকার কোনো কারণ নেই। গ্লেন ম্যাকগ্রা, ব্রেট লি, শন পোলকদের জায়গা হয়নি তার দলে।

১০. কপিল দেব: শোয়েবে দলে আছেন ভারতের আরও এক বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক কপিল দেব। ইতিহাসের সেরা এই পেস বোলিং অল-রাউন্ডার কিন্তু দলের অধিনায়ক নন। শোয়েবের দলের অধিনায়ক হলেন ১১ নম্বর ব্যক্তিটি!

১১. শেন ওয়ার্ন: শোয়েবের একাদশ ব্যক্তিটি হলেন অজি স্পিন গ্রেট শেন ওয়ার্ন। তার কাঁধেই নেতৃত্বভার। অস্ট্রেলিয়া দলকে কোনোদিনই নেতৃত্ব দেননি ওয়ার্ন। আইপিএলে নেতৃত্ব দিয়ে দলকে চ্যাম্পিয়ন করেছিলেন। তবে শোয়েবের সর্বকালের সেরা ওয়ানডে দলের নেতৃত্বে আছেন শেন ওয়ার্ন। তাছাড়া একাদশে ওয়ার্ন ছাড়া কোনো বিশেষজ্ঞ স্পিনার নেই।

 

Share.

Leave A Reply