শামীমের অভিনয়ে কাঁদলেন দর্শক

0

এফএনএস বিনোদন: তৃতীয় লিঙ্গের নয়নের কারণে পরিবার সামাজিকভাবে বেকায়দা পড়ে। অন্তত নয়নের বোন-বাবা তাই মনে করে। নয়ন অসহনীয় হয়ে ওঠে বাবা-মেয়ের কাছে। বৈষম্য আর তীব্র কটাক্ষে ঘর ছাড়ে নয়ন। নাম হয় ন্যায়না। হিজড়াপল্লীতে আশ্রয় হয় ন্যায়নার। রাস্তাঘাটে নাচ দেখিয়ে পয়সা তোলে নয়নের দল। কখনো কখনো হাত পাততে গিয়ে মারধরের স্বীকার হতে হয়। মার খেয়ে রক্তাক্ত হয়ে সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেয়। লকডাউনে বিপর্যস্ত হয়ে ওঠে জীবনযাপন, এর তীব্র আঁচ লাগে ন্যায়নাদের। অসৎ পথে, মাদক বিক্রির পথে নামে তারা। কিন্তু একজন করোনা রোগী তাদের চিন্তাকে পরিবর্তন করে দেয়। ন্যনয়নারা হয়ে ওঠে মানবিক। যখন রাস্তাঘাটে রোগীকে ফেলে সবাই পালিয়ে যায়, তখন এগিয়ে আসে ন্যয়নারা। স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে রোগীর পাশে দাঁড়ায় তারা। এভাবেই সেবা দিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মর্মান্তিক পরিণতির মুখোমুখি হয় ন্যয়না। মোমের পুতুল নামের নাটকের শেষ দৃশ্যে অনেকে অনেকেই চোখে জল ধরে রাখতে পারেননি। তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের ব্যথায় কঁকিয়ে উঠেছে দর্শক হৃদয়। নাটকের মন্তব্য বাক্স দেখলেই বোঝায় নাটকটি কতটা হৃদয় স্পর্শ করেছে দর্শক সমাজে। ন্যায়না চরিত্রে অভিনয় করে রীতিমতো প্রশংসায় ভাসছেন শামীম হাসান সরকার। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে সাম্প্রতিক সময়ে তৃতীয় লিঙ্গের স্বেচ্ছাসেবকদের কর্মকা- বেশ প্রশংসিত হয়। দেশজুড়ে আলোচনায়। সেই গল্পের আবহে নির্মিত হয়েছে মোমের পুতুল। পরিচালক মুহাম্মদ মিফতাহ্ বানিয়েছেন ‘মোমের পুতুল’। মানবাধিকার বঞ্চিত, অন্ধকার জগতের বাসিন্দা ও সমাজের অবহেলিত তৃতীয় লিঙ্গ তথা হিজড়াদের জীবনযাত্রা এবং পরিবার থেকে পাওয়া অবহেলার উপর ভিত্তি করে এগিয়ে নাটকের গল্প। ঈদকে কেন্দ্র করে প্রতিবছরই নির্মিত হয় অধিক সংখ্যক নাটক।তার মধ্যে কিছু নাটক আসে আলোচনায়। এবারও সেরকম কিছু নাটক নির্মিত হয়েছে।তবে এরইমধ্যে আলোচনার তুঙ্গে চলেছেন ‘মোমের পুতুল’ নাটকটি।ব্যাপক সাড়া ফেলেছে দর্শক মহলে।পাশাপাশি অর্জন করছে ভূয়সী প্রশংসা। ইউটিউব থেকে নাটকটি দেখে আবেগ আপ্লুত হয়ে মন্তব্য করছেন হাজারো দর্শক।তারা তাদের অনুভূতি লিখছেন কমেন্ট বক্সে।আর অভিনয় দিয়ে মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন ঈদের নাটকে শামীম হাসান সরকার। শামীম হাসান সরকার বলেন, ‘গল্পে আমি ছেলে হয়ে জন্মাই। আমার নাম থাকে নয়ন। একটা সময় জানা যায় আমি ছেলে নই, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ। তখন নামটিও বদলে যায়। নয়ন থেকে হয়ে যাই ন্যায়না। নাটকটির মাধ্যমে বিনোদনের পাশাপাশি আমাদের সমাজকে একটি গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ দেওয়ার চেষ্টা করেছি।জানিনা কতটুকু পেরেছি। তিনি বলেন, শৈশব-কৈশোরের স্কুল-কলেজ জীবনের বন্ধুরা এবং সিনিয়র-জুনিয়র ভাইয়েরা।নাটকটি দেখার পর তাদের কাছে থেকে যে লেভেলের ফিডব্যাক পাচ্ছি।তাদের প্রতিটি কথা আমার জন্য একেকটা অ্যাওয়ার্ডের মতো।তাদের প্রতি আমি বিশেষ কৃতজ্ঞা। কারণ তারা এমন একটি ভিন্ন ঘরানার কাজ গ্রহণ করেছেন সেই জন্য। সবার কাছে আমাদের একটাই চাওয়া থাকবে নাটকটি ভালো লাগবে সবাই শেয়ার করবেন। তাহলে আমাদের যে ম্যাসেজটা পৌঁছাতে চাচ্ছি সেখানে থেকে কিছুটা হলেও সাকসেস হবো। শামীম হাসান সরকার বলেন, নাটকটি যখন একা বসে দেখছিলাম।আর ভাবছিলাম এটা কি সত্যি আমি ছিলাম। এতদিন ধরে নাটকে কাজছি। কিন্তু কখনো নিজের নাটক দেখে নিজে এতোটা আবেগি হইনি। ন্যায়নাকে দেখে ভিশন আবেগী হয়ে গিয়েছিলাম আমি। ভাষায় প্রকাশ করে বোঝানো সম্ভব না। আমার চোখে পানি চলে এসেছিল। এই নাটকে কাজের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে শামীম হাসান সরকার বলেন,‘মোমের পুতুল’ নাটকের আমার শিল্পীসহ পুরো টিমকে ধন্যবাদ। তারা আমাকে কাজটি ভালোভাবে শেষ করার জন্য ফুল সাপোর্ট নেওয়ার জন্য।আমার কাছে সবচেয়ে বড় পাওয়া ছিল। যখন আমি তেজগাঁও শেষ দিনের শুটিং করছিলাম। তখন ইমোশনাল  সিকোয়েন্স তিনজন রিয়েল তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ আমাদের শুটিংটা দেখছিলেন। শুটিংয়ে শেষে তাদের যখন আমি জিজ্ঞাসা করলাম।আপনাদের হয়ে কথা বলছি ঠিকঠাক আছে। তারা তখন হাত তালি দিয়ে দোয়া করছেন- মুহূর্তটা আমি বোঝাতে পারবো না।নাটকে শামীম হাসান সরকার ছাড়াও আরও অভিনয় করেছেন সাবেরী আলম, শহীদুজ্জামান সেলিম, ফরহাদ লিমন প্রমুখ। ‘মোমের পুতুল’ নাটকটি ঈদুল আজহা উপলক্ষে নির্মিত নাটকটি বৃহস্পতিবার গ্লোবাল টিভির ইউটিউবে প্রাচার হয়। ‘মোমের পুতুল’ নাটকটির শুটিং হয় সাভার ও তেজগাঁওয়ে।

Share.

Leave A Reply