রূপগঞ্জের কাছে পাত্তাই পেল না সাকিবের মোহামেডান

0

এফএনএস স্পোর্টস: সাকিব আল হাসান যেন রান করতেই ভুলে গেছেন। লিগে দারুণ শুরুর পর মোহামেডানও ভুলে গেছে জিততে। এবার তাদের ভোগান্তিতে ফেলল সোহাগ গাজী, মোহাম্মদ শহিদ ও নাঈম ইসলামের ত্রিমুখী আক্রমণ। ব্যাটসম্যানদের চরম ব্যর্থতার ম্যাচে সাকিবের দল পাত্তাই পেল না রূপগঞ্জের কাছে। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টিতে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকে ৯ উইকেটে উড়িয়ে দিল লেজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। টানা তিন জয়ে লিগ শুরু করা মোহামেডানের এটি টানা তৃতীয় হার। ছয় ম্যাচে রূপগঞ্জ জয়ের স্বাদ পেল মাত্র দ্বিতীয়বার। মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার সোহাগ-নাঈমের অফস্পিনের সঙ্গে মোহাম্মদ শহীদের পেসে মোহামেডান ২৭ রানেই হারিয়ে ফেলে ৬ উইকেট। বিব্রতকর অবস্থা থেকে দলের মান বাঁচায় শুভাগত হোমের ঝড়ো ফিফটি। ২০ ওভারে তারা তোলে ১১৩ রান। রূপগঞ্জ অনায়াসেই জিতে যায় ১১ বল বাকি রেখে। আগের পাঁচ ম্যাচে উইকেটের মুখ না দেখা সোহাগ এবার ৪ ওভারে ২ উইকেট নেন মাত্র ৮ রান দিয়ে, সঙ্গে মেডেন দুটি। ম্যাচের সেরা তিনিই। লিগে প্রথমবার বল হাতে নিয়ে নাঈমের শিকারও ২ উইকেট। সাকিব ও নাদিফ চৌধুরিকে শূন্য রানে ফেরান শহীদ। ম্যাচের প্রথম ওভারে মাহমুদুল হাসানকে ফিরিয়ে সোহাগের শুরু। নিজের পরের ওভারে তিনি দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে ফেরান শামসুর রহমানকে। সাকিব ছয় বল খেলে শূন্য রানে ধরা পড়েন থার্ডম্যানে। লিগে এটি তার দ্বিতীয় শূন্য, ৬ ম্যাচে মোট রান হলো ৭৩। সাকিবের বিদায়ের পরের বলেই নাদিফ আউট হন শহীদের বাড়তি লাফানো অসাধারণ এক ডেলিভারিতে। ওপেনিং থেকে একটা পাশ আগলে রাখা পারভেজ হোসেন ইমন ২০ বলে ১০ করে বোল্ড হন নাঈমকে ডাউন দা উইকেট খেলতে গিয়ে। পরে নাঈমের বলেই ইরফান শুক্কুর ফেরেন দলকে আরও বিপদে ঠেলে। সেই ধ্বংসস্তুপে দাঁড়িয়েই শুভাগতর পাল্টা আক্রমণ। সানজামুল ইসলামকে ছক্কায় পান প্রথম বাউন্ডারি। পরে তার ছক্কার শিকার কাজি অনিক ও টানা দুই বলে নাবিল সামাদ। নিজের পঞ্চম ছক্কায় স্পর্শ করেন ফিফটি, ২৯ বলে। এরপর আর টেকেননি বেশিক্ষণ। মুক্তার আলিকে ক্রিজে ছেড়ে বেরিয়ে খেলার চেষ্টায় ধরা পড়েন উইকেটের পেছনে। আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত নিয়ে যদিও খুশি মনে হয়নি তাকে। মোহামেডানের লড়িয়ে স্কোরের সম্ভাবনাও শেষ হয় এতেই। ছোট রান তাড়ায় পিনাক ঘোষ ও মেহেদি মারুফের উদ্বোধনী জুটিতেই জয়ের কাছে পৌঁছে যায় রূপগঞ্জ। দুজনে তোলেন ৮৯ রান। ৪৬ বলে ৪১ করে মারুফ বোল্ড হন মাহমুদুলকে স্লগ করে। পিনাক ও সাব্বির শেষ করে আসেন বাকি কাজ। অভিষেক টি-টোয়েন্টির দেড় বছর পর ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমে পিনাক অপরাজিত ৫১ বলে ৫১ করে। সাকিবের বলে সাব্বিরের ছক্কায় শেষ হয় ম্যাচ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

মোহামেডান: ২০ ওভারে ১১৩/৯ (মাহমুদুল ০, পারভেজ ১০, শামসুর ৫, সাকিব ০, নাদিফ ০, ইরফান ৯, শুভাগত ৫২, আবু হায়দার ১৫, ইয়াসিন ৬, আবু জায়েদ ৮*, আসিফ ৫*; সোহাগ ৪-২-৮-২, শহিদ ৪-০-২১-২, নাঈম ২-০-৬-২, সানজামুল ২-০-১৩-০, নাবিল ৩-০-২৪-০, অনিক ৩-০-২৯-২, মুক্তার ২-০-১২-১)।

রূপগঞ্জ: ১৮.১ ওভারে ১১৭/১ (পিনাক ৫১*, মারুফ ৪১, সাব্বির ১৪*; সাকিব ৩.১-০-১৭-০, শুভাগত ৩-০-১৭-০, আবু জায়েদ ২-০-২০-০, ইয়াসিন ২-০-১৩-০, আবু হায়দার ১-০-১১-০, আসিফ ৪-০-২১-০, মাহমুদুল ৩-০-১১-১)।

ফল: লেজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ৯ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দা ম্যাচ: সোহাগ গাজী।

Share.

Leave A Reply