ভিক্ষুক হত্যা জড়িত ভিক্ষুককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ কুষ্টিয়া থেকে

0

স্টাফ রিপোর্টার : ভিক্ষুক আল্লাদী হত্যায় জড়িত অপর ভিক্ষুক কল্পনাকে কুষ্টিয়া থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার তাকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশের কাছে ধৃত আসামির কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় হত্যাকান্ডে ব্যবহার করা ধারালো চাকু। আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় গত শবে বরাতের রাতে ভিক্ষুক আল্লাদী ও ভিক্ষুক কল্পনা ভিক্ষা করতে আরিফপুর গোরস্থান মসজিদের যায়। সেখানে সকল ভিক্ষুক লাইন হয়ে বসে ভিক্ষা চাইতে থাকা কালে ভিক্ষুক আল্লাদী তার মেয়ে ও নাতনী সহ ঘুরে ঘুরে ভিক্ষা করতে থাকে। এতে ভিক্ষুক আসামি কল্পনা ও আল্লাদীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় । এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি হয় এবং আল্লাদী কল্পনাকে লাঠি দ্বারা একটি আঘাত করে। উক্ত আঘাত কল্পনার বাম চোখের উপর লেগে চোখ ফুলে উঠে। এর পর কল্পনা তার বাড়ি চলে আসে। এর দু তিন দিন পর কল্পনার স্বামী ভিক্ষুক আসামি বাবলু কুষ্টিয়া এলাকা হতে ভিক্ষা করিয়া বাড়ি এসে তার স্ত্রী কল্পনা এর চোখ ফোলা দেখয়া এর কারন জানতে চায়। কল্পনা তার স্বামীকে সবে বরাতের রাতের ঘটনা খুলে বলে। বাবলু তার স্ত্রীর নিকট সব শুনে এর প্রতিশোধ নেওয়ার কথা ব্যক্ত করে এবং সেই কারনে সব সময় তার কাছে একটি চাকু রাখে। যাতে আল্লাদীর সাথে দেখা হলে সে প্রতিশোধ নিতে পারে। গত ৮ মে ভিক্ষুক আসামি বাবলু ও তার স্ত্রী কল্পনা সকালে সাহায্য নেওয়ার জন্য বড় বাজার পানির ট্যাংকির সামনে লাইজু হাজির বাড়ির সম্মুখে আসিয়া ভিক্ষুক আল্লাদী কে দেখতে পায়। কল্পনা তখন আঙ্গুল দিয়ে তার স্বামী কে দেখিয়ে বলে যে ঐ যে আল্লাদী । আল্লাদী ইহা দেখিয়া কল্পনার দিকে তেড়ে আসে এবং বলে যে কি তুই আজকেও আমার সাথে মারামারি করবি। কল্পনা ও এগিয়ে গেলে তাহাদের মধ্যে হাতাহাতি ও চুল টানা টানি শুরু হয়। একদিকে আল্লাদী ও তার মেয়ে, অন্যদিকে কল্পনা । এই দেখিয়া বাবলু তাহার ব্যাগ হতে চাকু বাহির করিয়া এগিয়ে যায় এবং আল্লাদীর পেটে চাকু ঢুকিয়ে দেয় । বাবলু আল্লাদীর শরীরে বেশ কয়েকটি চাকু দিয়ে আঘাত করিলে আল্লাদী মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। অন্যান্য ভিক্ষুক আগাইয়া আসিলে তাহারা দৌড়ে তাদের বাড়ি যায় এবং চাকুটি পরিষ্কার করে রান্না ঘরের চালে গুজে রেখে কিছু কাপড়-চোপড় নিয়ে কুষ্টিয়ার উদ্দেশ্য পালিয়ে যায় ।  পলাতক অপর আসামীকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

Share.

Leave A Reply