ভাঙ্গুড়ায় দ্বিতীয় ডোজ টিকার অপেক্ষায় ১৯৪১ জন

0

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি : ভাঙ্গুড়ায় করোনা ভাইরাসের টিকা প্রদান বন্ধ হয়ে গেছে। স্বাস্থ্য দপ্তরের সরবরাহকৃত টিকা ফুরিয়ে যাওয়ায় গত বৃহস্পতিবার টিকাদান কর্মসূচি স্থগিত করে দেয় উপজেলা স্বাস্থ্য প্রশাসন। এতে উপজেলার ১৯৪১ জন নারী-পুরুষের নির্ধারিত সময়ে দ্বিতীয় দফায় টিকা পাওয়া নিয়ে সংশয় সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার হালিমা খানম। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, টিকা প্রদান কর্মসূচির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাঙ্গুড়ায় ৫ হাজার ৪৮৭ জন নারী-পুরুষ টিকা পেতে নিবন্ধন করেন। নিবন্ধনকৃতদের মধ্যে প্রথম দফায় ৪ হাজার ৬২৯ জন টিকা গ্রহণ করেন। এদের মধ্যে ২ হাজার ৬৮৮ জন নির্ধারিত সময়ে দ্বিতীয় দফায় টিকা নেন।  এ অবস্থায় গত বৃহস্পতিবার সরবরাহকৃত টিকা ফুরিয়ে গেলে টিকা প্রদান কর্মসূচি স্থগিত করে দেয়া হয়। এতে ১ হাজার ৯৪১ জন দ্বিতীয় দফায় কবে টিকা পাবেন তা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। উল্লেখ্য, এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে ভাঙ্গুড়ায় ৪১৪ ভায়াল করোনা ভাইরাসের টিকা সরবরাহ করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সারাদেশের ন্যায় ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয় টিকা প্রদান কর্মসূচি। প্রথমদিকে সাধারণ মানুষের মধ্যে টিকা নেওয়ার আগ্রহ কম থাকলেও ধীরে ধীরে চাহিদা বাড়তে থাকে। চাহিদার প্রেক্ষিতে পরবর্তীতে জেলা স্বাস্থ্য প্রশাসন আরও ৩০০ ভায়াল টিকা এই উপজেলায় সরবরাহ করেন।  স্কুল শিক্ষক সাইফুল ইসলাম বলেন, গত মার্চ মাসের ৮ তারিখে প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছি। সেই অনুসারে মে মাসের ৮ তারিখে দুই মাস পূর্ণ হয়েছে। কিন্তু আজ পর্যন্ত দ্বিতীয় দফায় টিকা নেওয়ার জন্য মেসেজ পাইনি। এখন শুনছি টিকা ফুরিয়ে গেছে। তাহলে আবার কবে পাবো তাও সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কেউ বলতে পারছে না। এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছি।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার হালিমা খানম বলেন, বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সংরক্ষিত টিকা শেষ হয়ে গেছে। পুনরায় টিকা কবে নাগাদ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরবরাহ করা হবে এটা এখনো ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ জানায়নি। তাই দ্বিতীয় দফায় অপেক্ষারত ব্যক্তিদের টিকা প্রদান কবে করা যাবে সেটা বলা এই মুহূর্তে সম্ভব হচ্ছে না।

Share.

Leave A Reply