প্রিমিয়ার লিগে আজ হাই ভোল্টেজ ম্যাচে মুখোমুখি ম্যান সিটি-লিভারপুল

0

এফএনএস স্পোর্টস: দীর্ঘ ২৯ বছর আগে সর্বশেষ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপাটা ঘরে তুলেছিল লিভারপুল। এরপর শিরোপা স্বাদের মধুর অভিজ্ঞতা যেন ভুলেই গিয়েছিল অল রেডসরা। কিন্তু এবারের মৌসুমে প্রথম থেকেই বদ্ধপরিকর এই দলটি নিজেদের প্রমানে যেন শতভাগ উজাড় করে দিয়েছে। আজ রোববার বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটিকে আতিথ্য দেবার ম্যাচটিতে সেই চেষ্টার কোন কমতি করবে না জার্গেন ক্লপ শিষ্যরা।

অন্যদিকে পেপ গার্দিওলার অধীনে গত কয়েকটি মৌসুমে দারুণভাবে এগিয়ে যাওয়া ম্যান সিটির লক্ষ্য থাকবে লিভারপুলের সেই অপেক্ষাকে আরো একটু প্রসারিত করার।

গত মৌসুমে মাত্র এক পয়েন্টের জন্য সিটির কাছে শিরোপা স্বপ্ন হাতছাড়া হয়েছিল লিভারপুলের। কিন্তু ৯৭ পয়েন্ট নিয়ে প্রিমিয়ার লিগ ইতিহাসে দ্বিতীয় স্থানে থাকা কোন দলের জন্য সর্বোচ্চ পয়েন্ট সংগ্রহই ছিল রেডসদের জন্য বড় অনুপ্রেরণা। ১০০ পয়েন্টের মধ্যে ৯৮ পয়েন্ট সংগ্রহ করে সিটির ঘরেই ছিল শিরোপা। আজ রোববার হাই ভোল্টেজ ম্যাচের আগে লিভারপুল সিটিজেনদের থেকে ৬ পয়েন্ট এগিয়ে মাঠে নামবে।

ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে শনিবার গার্দিওলা বলেছেন, ‘গতবার আমরা প্রিমিয়ার লিগে ক্যারিয়ারের সবচেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ দলের বিপক্ষে লড়াই করে শিরোপা জিতেছিলাম। এই মুহূর্তে লিভারপুলই বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী দল। আমরা জানি এনফিল্ডে খেলাটা তাদের কাছে কি অর্থ বহন করে।’

মূলত চার বছর আগে ক্লপ দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকেই লিভারপুলের পুনরুত্থানের শুরু। ২০১৭ সালের এপ্রিলের পর থেকে প্রিমিয়ার লিগে ঘরের মাঠে লিভারপুল কোন ম্যাচে পরাজিত হয়নি। লিগে তাদের সর্বশেষ ৫০টি ম্যাচের মধ্যে একমাত্র হারটি এসেছিল জানুয়ারিতে সিটির বিপক্ষে। ঐ ম্যাচের ফলাফলই কার্যত লিগের ভাগ্য গড়ে দিয়েছিল।

উভয় দলের অসাধারণ ধারাবাহিকতার কারণেই আজকের ম্যাচটি সাম্প্রতিক সময়ে ইংলিশ ফুটবলে সবচেয়ে বড় ম্যাচ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। ২০১৭/১৮ মৌসুমে লিভারপুলই লিগে সিটির অপরাজিত থাকার রেকর্ড ভঙ্গ করেছিল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে গার্দিওলার দলকে দুই লেগ মিলিয়ে ৫-১ ব্যবধানে বিধ্বস্ত করেছিল রেডসরা।

ক্লপ বলেন, ‘এই ম্যাচটি ক্রমেই বড় হচ্ছে। ম্যান সিটি দারুন একটি দল। ঈশ্বরকে ধন্যবাদ, তাদের মত একটি দলকে আমাদের সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এর অর্থ হচ্ছে আমরাও তাদের সমমানের দল।’

মৌসুমের প্রথম ১১ ম্যাচে নরউইচ ও উল্ফসের বিপক্ষে পরাজিত হয়ে হতাশ করেছে সিটি। এই সুযোগে এখনো অপরাজিত লিভারপুল নিজেদের এগিয়ে নিয়ে গেছে। গত মাসে লিস্টার, টটেনহ্যাম, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও এস্টন ভিলার বিপক্ষে শেষ মুহূর্তেও গোলে ক্লপের দলের অতিরিক্ত ৮ পয়েন্ট যোগ হয়েছে। এখন সিটির বিপক্ষে ঘরের মাঠে এই সুবিধাকে কাজে লাগানোর আরো একটি সুযোগ এসেছে লিভারপুলের সামনে। যদিও গোলরক্ষক এডারসনের ইনজুরিতে দল কিছুটা হলেও দু:শ্চিন্তায় রয়েছে। এডারসনের অনুপস্থিতিতে ২০১৮ সালের মে মাসের পর প্রথমবারের মত প্রিমিয়া লিগে মূল একাদশে খেলবেন ক্লডিও ব্র্যাভো।

অন্যদিকে অমারিক লাপোর্তের দীর্ঘ ইনজুরি সিটির রক্ষণভাগকে দূর্বল করে তুলেছে। যে কারণে মিডফিল্ডার ফার্নান্দিনহোকে বাধ্য হয়ে সেন্টার-ব্যাকে খেলতে হচ্ছে। লেফট-ব্যাক বেঞ্জামিন মেন্ডিও দুই মৌসুমের ইনজুরি কাটিয়ে এখনো পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠতে পারেননি। সিটি বস হিসেবে এনফিল্ডে পাঁচবারের সফরে চারবারই পরাজয়ের স্বাদ পেয়েছেন গার্দিওলা। এবার এই খরা কাটিয়ে অন্তত সিটিকে কিছুটা হলেও শিরোপা লড়াইয়ে টিকিয়ে রাখতে চান এই স্প্যানিশ।

Share.

Leave A Reply