প্রথমবারের মতো রাত্রীকালিন টি-১০ ক্রিকেট টূর্নামেন্ট উদ্বোধন চাটমোহরে

0

ক্রীড়া প্রতিবেদক : মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে পাবনার চাটমোহরে প্রথমবারের মতো শুরু হলো রাত্রীকালিন টি-১০ ক্রিকেট টূর্নামেন্ট। দর্শকদের ভিন্ন আঙ্গিকে ক্রিকেট খেলা উপহার দিতে এই টূর্নামেন্টের আয়োজন করে চাটমোহর ক্রিকেট একাডেমী। বুধবার সন্ধ্যা সাতটায় প্রধান অতিথি থেকে টূর্নামেন্ট উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সরকার মোহাম্মদ রায়হান। বিশেষ অতিথি ছিলেন চাটমোহর পৌর মেয়র মির্জা রেজাউল করিম দুলাল, চাটমোহর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার সজীব শাহরিন, সহকারি কমিশনার (ভূমি) ইকতেখারুল ইসলাম, চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সেখ নাসীর উদ্দিন, প্যানেল মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি নাজিমুদ্দিন মিয়া, উপজেলা ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সাংবাদিক কেএম বেলাল হোসেন স্বপন, চাটমোহর ক্রিকেট একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক ফজলুল হক কালু। নাটোর, বড়াইগ্রাম, চাটমোহর ও ভাঙ্গুড়া উপজেলার মোট আটটি দল এই টূর্নামেন্টে অংশ নিচ্ছে। প্রথমদিনে এ গ্রুপে অনুষ্ঠিত হয় প্রথম সেমিফাইনাল তিনটি খেলা। ফাইনালে উঠেছে চাটমোহরের শহীদ শামসুদ্দিন স্মৃতি সংঘ। প্রথমে এ গ্রুপের খেলায় চাটমোহরের শহীদ শামসুদ্দিন স্মৃতি সংঘ ৮ রানে ভাঙ্গুড়া পৌর মেয়র একাদশকে পরাজিত করে। টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শহীদ শামসুদ্দিন স্মৃতি সংঘ ৯.৫ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৬৫ রা সংগ্রহ করে। দলের পক্ষে রনি (১) ১৩, সোহাগ ১২ রান করে। ভাঙ্গুড়ার পক্ষে নাহিদ ৩টি উইকেট লাভ করে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ১০ ওভারে ৫৭ রানে অলআউট হয় ভাঙ্গুড়া পৌর মেয়র একাদশ। দলের পক্ষে রাজা সর্বোচ্চ ১৫ রান করে। শহীদ শামসুদ্দিন স্মৃতি সংঘের পক্ষে হরি ৪টি ও মুন্না ২টি উইকেট লাভ করে। পরে সি গ্রুপের দ্বিতীয় খেলায় বড়াইগ্রাম ক্রিকেট একাডেমী ৬ রানে চাটমোহরের নতুনপাড়া ক্রিকেট একাদশকে পরাজিত করে। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ১০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ৬৯ রান সংগ্রহ করে। দলের পক্ষে সুজন ১৬ ও সাব্বির ১৩ রান করে। নতুনপাড়ার পক্ষে কামরুল ৩টি ও সাব্বির ২টি উইকেট লাভ করে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ১০ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ৬৩ রান করতে সক্ষম হয়। দলের পক্ষে কামরুল  সর্বোচ্চ ২৮ ও সরোয়ার ২৫ রান করে। বড়াইগ্রামের পক্ষে হিরো ৩টি ও রাতুল ২টি উইকেট লাভ করে। এ গ্রুপের দুই খেলায় বিজয়ী দুই দল চাটমোহরের শহীদ শামসুদ্দিন স্মৃতি সংঘ ও বড়াইগ্রাম ক্রিকেট একাডেমী মুখোমুখি হয় প্রথম সেমিফাইনালে। টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ১০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ৭৩ রান সংগ্রহ করে বড়াইগ্রাম। দলের পক্ষে সজিব ৩০, অনিক ১৪ রান করে। শহীদ শামসুদ্দিনের পক্ষে মুন্না ৩টি ও হরি ২টি উইকেট লাভ করে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৭.৫ ওভারে ৭৭ রান করে জয়ের বন্দরে পৌঁছায় শহীদ শামসুদ্দিন স্মৃতি সংঘ। দলের পক্ষে অপু সর্বোচ্চ ৩৩ ও সোহাগ ২৬ রান করে। বড়াইগ্রামের পক্ষে হিরো ২টি ও রাতুল ১টি উইকেট লাভ করে। এর মাধ্যমে চাটমোহরের শহীদ শামসুদ্দিন স্মৃতি সংঘ উঠে গেলো ফাইনালে।

Share.

Leave A Reply