পুরাতন বাসষ্ট্যান্ডের মানিকের ইন্তেকাল

0

স্টাফ রিপোর্টার : শহরের পুরাতন বাসষ্ট্যান্ডের (মুক্তিযোদ্ধা মার্কেট সংলগ্ন) চায়ের দোকানী মানিক হোসেন শুক্রবার রাত পৌনে একটায় নিজের দোকানের ভেতরে ষ্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহে……রাজেউন)। তিনি আটুয়া হাউজপাড়ার বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম সুজন আলীর বড় ছেলে। প্রতিদিনের মতো দোকানে বসে ব্যবসা করছিলেন সদালাপী হাস্যজ্জল মানিক। চা খাইয়েছেন সেখানে থাকা অনেক মানুষকে। রাত সোয়া বারোটার দিকে প্রায় প্রতিদিনের মতো সেখানে পৌরসভার মেয়র শরীফ উদ্দিন প্রধানসহ দলের নেতাকর্মীরা চা খেয়েছেন তার হাতে। এরপরে চলে গেছেন তারা। দোকানদারী করছিলেন মানিক। কথা বলছিলেন হেসে সেখানে থাকা খরিদ্দারদের সাথে। রাত পৌনে একটার দিকে দোকানের সামনে এসে এক খরিদ্দার ভদ্রলোক ঠান্ডা পানি চাইলে সে দোকানের পেছন দিকে থাকা ফ্রিজ থেকে পানি বের করতে যান। এসময় এমনি ছিলো প্রচন্ড গরম, দোকানের পেছন সাইডে অতিরিক্ত গরমে এসময় ষ্ট্রোক করে সেখানেই মারা যান তিনি। এখবর জেনে পৌরসভার মেয়রসহ সেখানে চা খেয়ে ফিরে গেছেন সকলেই দ্রুত ছুটে এসে তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। গতকাল বেলা এগারোটায় কাচারীপাড়ার খাদিজাতুল মাদ্রাসা প্রাঙ্গনে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। অসংখ্য মানুষ এতে শরিক হন। তাকে আরিফপুর সদর গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে। উল্লেখ্য, মানিক পাবনা সিভিল সার্জন অফিসের কর্মচারী মুক্তারের বড় ভাই। ব্যবহার ও আচার আচরনের কারনে সকলে মানিককে ভালোবাসতো। তার বয়স হয়েছিলো ৩৮ বছর। মৃত্যুকালে সে স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়ে, আত্মীয় স্বজনসহ শুভুানুধ্যায়ী রেখে গেছেন। তার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে আসে পুরাতন বাসষ্ট্যান্ড এলাকাতে। পরিবারের পক্ষ থেকে তার জন্য সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করা হয়েছে।

Share.

Leave A Reply