জার্সি নিলামে তুলবে কোহলির বেঙ্গালোর

0

এফএনএস স্পোর্টস: প্রায় প্রতিদিন হচ্ছে করোনাভাইরাস শনাক্তের রেকর্ড। মৃত্যুও বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। কঠিন এই সময়েও মাঠে চলছে আইপিএল। জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকলেও বাইরের ভয়াবহ পরিস্থিতি বুঝতে পারছেন ক্রিকেটাররা। অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াতে দুই ধাপে সাহায্যের পরিকল্পনা করেছে আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালোর। দলটির অধিনায়ক বিরাট কোহলি জানালেন, ফ্র্যাঞ্চাইজি হিসেবে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেঙ্গালোর। সাহায্যের পরিমাণ বাড়াতে পরবর্তীতে খেলোয়াড়দের জার্সি নিলামে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। ভারতে রোববার পর্যন্ত শনাক্ত মোট করোনাভাইরাস রোগীর সংখ্যা দুই কোটির কাছে। সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় ভারত দেখেছে সর্বোচ্চ মৃত্যু। বেঙ্গালোরের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোয় দেওয়া এক ভিডিও বার্তায় কোহলি ফ্র্যাঞ্চাইজির আর্থিক সাহায্যের পরিকল্পনার কথা জানান।  “করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাবে আমাদের দেশে যা ঘটছে তা গভীর উদ্বেগের। এই পরিস্থিতিতে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালোর স্বাস্থ্য সেবার গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলো চিহ্নিত করেছে, যেখানে তাৎক্ষণিক সহায়তা প্রয়োজন। অক্সিজেন সরবরাহ সংক্রান্ত অবকাঠামোর ক্ষেত্রে আমরা আর্থিক সহায়তা দেব।” আর জার্সি নিলামে তোলার পরিকল্পনায়, সামনের একটি ম্যাচে নীল রঙয়ের বিশেষ জার্সি পরে খেলবেন তারা। পরে সেগুলোই উঠবে নিলামে। “অর্থ সংগ্রহের জন্য সব খেলোয়াড়ের স্বাক্ষর করা ওই ম্যাচের জার্সি নিলামে তুলবে আরসিবি। এই অর্থও স্বাস্থ্য খাতের অবকাঠামো উন্নয়নে আমাদের আগের দেওয়া অর্থের সঙ্গে যোগ হবে। আপনাদের সবাইকে নিরাপদে ঘরে থাকতে ও প্রথম সুযোগে টিকা নেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।” কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউয়ে টালমাটাল ভারতে অক্সিজেন সরবরাহের জন্য এরইমধ্যে সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন দেশি-বিদেশি অনেক ক্রিকেটার। ব্যাটিং কিংবদন্তি শচিন টেন্ডুলকার ও দিল্লি ক্যাপিটালসের শিখর ধাওয়ান অর্থ দান করেছেন মিশন অক্সিজেন নামের একটি চ্যারিটিতে। রাজস্থান রয়্যালসের জয়দেব উনাদকাট দান করেছেন তার আইপিএল পারিশ্রমিকের ১০ শতাংশ। অস্ট্রেলিয়ান পেসার প্যাট কামিন্স ৫০ হাজার ডলার ও তার পূর্বসূরি ব্রেট লি এক বিটকয়েন (প্রায় ৪১ লাখ রুপি) অনুদান দিয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার রাজস্থান রয়্যালস খেলোয়াড়, মালিক ও ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে ১০ লাখ ডলার সহায়তা দেওয়ার কথা ঘোষণা করে।

Share.

Leave A Reply