চীনে এক দশকে জন্মহার সবচেয়ে কম

0

এফএনএস ডেস্ক: বিগত এক দশকে চীনে জন্মহার সবচেয়ে কমেছে। এই সময়ে দেশটিতে সবচেয়ে ধীর গতিতে জনসংখ্যা বেড়েছে। গতকাল মঙ্গলবার চীনা সরকার কর্তৃক প্রকাশিত এক পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য জানা গেছে। বিগত দশ বছরে দেশটিতে জনসংখ্যা বৃদ্ধির বার্ষিক হার ছিল দশমিক শূন্য ৫৩ শতাংশ। ২০০০ এবং ২০১০ সালে এই হার শূন্য দশমিক ৫৭ শতাংশের নিচে নেমেছিল। দেশটির বতর্মান জনসংখ্যা ১৪১ কোটিতে পৌঁছেছে। খবর বিবিসির। এদিকে, জনসংখ্যা বৃদ্ধির এই ধীর গতি হ্রাস করতে চীনা সরকার দম্পতিদের একাধিক সন্তান নিতে বিভিন্নভাবে প্ররোচনা চালাচ্ছেন। এজন্য ২০১৬ সালে সরকার ‘এক সন্তান’ নীতি থেকে সরে আসলেও তা খুব একটা ফলপ্রসূ হয়নি। ২০২০ সালের শেষ দিকে এই আদমশুমারিটি করা হয়েছিল। ৭০ লাখ আদমশুমারি গ্রহণকারীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে এইসব তথ্য সংগ্রহ করে। ধারণা করা হচ্ছে, এই জরিপটি দেশটিতে জনসংখ্যা সম্পর্কিত আগামী পরিকল্পনায় কী পদক্ষেপ নেওয়া যাবে তাতে কাজে লাগবে। চীনের জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরোর প্রধান নিং জিঝে জানান, গত বছর দেশটিতে ১ কোটি ২০ লাখ শিশু জন্মগ্রহণ করে। ২০১৬ সালে এই সংখ্যা ছিল ১ কোটি ৮০ লাখ। নিং জিঝের ভাষায়, চীনের সামাজিক ও অর্থনৈতিক বিকাশে কারণে প্রাকৃতিকভাবে জন্মহার কমছে। বিশ্লেষকদের মতে, দেশ উন্নত হওয়ার সাথে সাথে শিক্ষা বা ক্যারিয়ারের মতো অন্যান্য অগ্রাধিকারের কারণে জন্মের হার হ্রাস পায়। উদাহরণস্বরূপ – চীনের প্রতিবেশী দেশ জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়াও দম্পতিদের আরও বেশি সন্তানের জন্ম নেওয়ার জন্য সরকারের বিভিন্ন প্ররোচনা সত্ত্বেও সাম্প্রতিক বছরগুলিতে জন্মের হার হ্রাস পেয়েছে। গত বছর, দক্ষিণ কোরিয়ার ইতিহাসে প্রথমবারের মতো জন্মের চেয়ে বেশি মৃত্যুর রেকর্ড হয়েছে। যা দেশটিতে উদ্বেগ তৈরি করেছে।

 

 

 

Share.

Leave A Reply