খুশিতে ভাসছেন শরিফুল, অপেক্ষায় হাসান-মেহেদি

0

এফএনএস স্পোর্টস: যুব বিশ্বকাপ জেতা শরিফুল ইসলাম প্রথমবারের মতো জাতীয় দলে ডাক পেয়ে যেন খুশিতে ভাসছেন। এরই দেশের হয়ে টি-টোয়েন্টি খেলা হাসান মাহমুদ ও মেহেদি হাসানের নজর আরেক সংস্করণে অভিষেকে। বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের তিন তরুণ জানালেন তাদের ভাবনার কথা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ডাক পেয়েই বাঁহাতি পেসার শরিফুলের একটি স্বপ্ন পূরণ হয়ে গেছে। তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমানদের সঙ্গে থাকবেন একই ড্রেসিংরুমে। মনের আকাশে উঁকি দিচ্ছে আরেকটি স্বপ্নও। “খবরটা শুনে খুব ভালো লাগছিল। প্রথমবারের মতো আমি জাতীয় দলে আছি। ভালো কিছু করার চেষ্টা করব। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের পর বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ, প্রেসিডেন্টস কাপে মোটামুটি ভালো খেলেছি। যদি একাদশে সুযোগ পাই, ওই ধরনের পারফরম্যান্সই করার চেষ্টা করব। জায়গাটা ধরে রাখার চেষ্টা করব।” “ক্রিকেট শুরু করার সময় থেকেই ভাবতাম যদি সাকিব ভাই, তামিম ভাই, রিয়াদ ভাই, মুশফিক ভাই, মুস্তাফিজ ভাইয়ের সঙ্গে খেলতে পারতাম। স্বপ্ন ছিল, সেটা পূরণ হয়েছে। কোনো ভুল করলে তারা সেটা ধরিয়ে দিচ্ছেন। সবাই ঐক্যবদ্ধ ছিলাম বলে যুব বিশ্বকাপ জিততে পেরেছিলাম। সেই একইভাবে যদি এখানেও ঐক্যবদ্ধ হয়ে খেলতে পারি, তাহলে আশা করি মূল বিশ্বকাপও জিততে পারব।” গত মার্চে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হওয়া তরুণ পেসার হাসানের নজর প্রক্রিয়া ঠিক রাখার দিকে। সব ঠিকঠাক মতো করে ধরে রাখতে চান জায়গা। “প্রক্রিয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। যখন যেখানে যে ফরম্যাটে খেলি, নিজের সেরাটা দিব। প্রক্রিয়াটা ঠিক রাখার চেষ্টা করব। নিজেকে ফিট রাখার চেষ্টা করব। ধারাবাহিকতা খুব গুরুত্বপূর্ণ।” অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান মনে করেন, পরিশ্রম করে যাওয়ার পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। এবার আরেক ধাপ এগিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রতিষ্ঠিত করতে চান নিজেকে।  “পরিশ্রম করে এখানে এসেছি। টি-টোয়েন্টি দিয়ে দেশের হয়ে খেলেছি এখন ওয়ানডেতে সুযোগ এসেছে। যদি একাদশে থাকি, তাহলে ব্যাটিং বা বোলিং যেটাতেই সুযোগ আসে অবদান রাখার চেষ্টা করব।”

 

 

Share.

Leave A Reply