আইপিএল না হলে খেলোয়াড়রা টাকা পাবেন না

0

এফএনএস স্পোর্টস: আইপিএল না হলে খেলোয়াড়রা অর্থ পাবেন না বলে মনে করছে আইপিএল কর্তপক্ষ, ফ্র্যাঞ্চাইজিমালিকগন ও ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অশোক মালহোত্রা। গত ২৯ মার্চ থেকে আইপিএল শুরুর নির্ধারিত সূচি ছিলো। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে সেটি স্থগিত হয়ে পড়ে। আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত তা স্থগিত রয়েছে। ১৫ এপ্রিলের পরও যে তা শুরু হবে, সেটির কোন নিশ্চিয়তা নেই। এরমাঝে আর্থিক বিষয় নিয়েও আলোচনা শুরু হয়ে গেল। ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মালহোত্রা বলেন, ‘ক্রিকেট থেকে অর্থ আয় করে বিসিসিআই। যদি ক্রিকেট না হয় তা হলে অর্থ কোথা থেকে আসবে? এটা শুধু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের বিষয় নয় ঘরোয়া খেলোয়াড়দের উপরও প্রভাব পড়বে। এটা বোর্ডের দোষ নয়। এটা বৈশ্বিক সমস্যা।’ আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির এক সিনিয়র কর্তা পিটিআইকে বলেন, ‘আইপিএল-এর নিয়ম অনুযায়ী ১৫ শতাংশ টাকা টুর্নামেন্ট শুরুর এক সপ্তাহ আগে দেওয়া হয়। ৬৫ শতাংশ দেওয়া হয় টুর্নামেন্ট চলার সময়। বাকি ২০ শতাংশ দেওয়া হয় টুর্নামেন্ট শেষ হওয়ার পর। তবে ১৩তম আইপিএলে কোনও খেলোয়াড়কে এখনও কোনও টাকা দেওয়া হয়নি।’ এ ব্যাপারে এক ফ্র্যাঞ্চাইজির এক কর্তা জানিয়েছেন, ‘মহামারীর জন্য বীমার আওতায় খেলোয়াড়দের বেতন নেই। আমরা বীমা সংস্থার থেকে কোনও টাকা পাব না কারণ আইনে মহামারী এর মধ্যে নেই। যদি কোনও খেলাই না হয় তাহলে আমরা কীভাবে তা দেব।’ উদাহরন হিসেবে বিশ্বের অন্যান্য লিগের কথা উল্লেখ করে ঐ কর্তা বলেন, ‘ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, লা লিগা, বুন্দেশলিগার প্রত্যেক খেলোয়াড়ের কাছ থেকে বেতন কাটা হচ্ছে। তবে এখানেও এমন হতে পারে।’

বিসিসিআই-এর কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমল বলেন, ‘আইপিএল অবশ্যই বিসিসিআই-এর সব থেকে বড় টুর্নামেন্ট। এই পরিস্থিতিতে সব কিছুই কঠিন। যেকোন সিদ্বান্ত নেয়াও কঠিন।’

 

Share.

Leave A Reply