হাজত গণ অর্থায়নের সিনেমা

0

এফএনএস বিনোদন: ‘‘কয়েকজন কাছের মানুষের কাছ থেকে টাকা এবং এক বন্ধুর কাছ থেকে ক্যামেরা ধার নিয়ে সিনেমাটির শুটিং করেছি। সেই অর্থে ‘হাজত’ গণ অর্থায়নের সিনেমা’’ সংবাদমাধ্যেমে আলাপকালে কথাগুলো বলেন তরুণ নির্মাতা যুবরাজ শামীম। এর আগে প্রতি শেয়ার ৫ হাজার টাকা করে সর্বমোট ১২০টি শেয়ার বিক্রি করে ‘আদিম’ সিনেমার কাজ শেষ করেন নির্মাতা। যেখানে বস্তির অপেশাদার অভিনেতা-অভিনেত্রী অভিনয় করেছেন। সিনেমাটির কাজ একদম শেষ ধাপে আছে। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে মুক্তির পরিকল্পনা রয়েছে। ‘হাজত’ মূলত ‘আদিম’-এর সিক্যুয়েল। তবে ‘আদিম’ এবং ‘হাজত’ পুরোপুরি ভিন্ন সিনেমা। মানুষ প্রবৃত্তির তাড়নায় বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। আর সেই অপরাধের গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘আদিম’। অন্যদিকে অপরাধ করার পর অপরাধীর মানসিক অবস্থার গল্প নিয়ে নির্মিত হচ্ছে ‘হাজত’। ‘হাজত’ সিনেমার গল্প প্রসঙ্গ নির্মাতা যুবরাজ শামীম বলেনÑমূলত অপরাধবোধের গল্প এটি। এই সিনেমার প্রধান চরিত্র সাদেক ভয়ংকর এক অপরাধ করে। আর সেই অপরাধের বিষয়ে কেউ কখনো জানতে পারে না। এতে তার স্বাভাবিক জীবন পার করারই কথা। কিন্তু সাদেকের ভেতরে অপরাধবোধটা নতুন এক যন্ত্রণার জন্ম দেয়। সেই যন্ত্রণা থেকে মুক্তির নানা উপায় খুঁজতে থাকে সাদেক। অপরাধ করে দুনিয়ার হাজত থেকে পার পেলেও সাদেক বিবেকের হাজতে বন্দি থাকে। করোনার এই পরিস্থিতিতে ১৬ দিন সিনেমাটির শুটিং করেছেন পরিচালক। এরইমধ্যে শুটিং শেষ হয়েছে। এখন বাকি রয়েছে সম্পাদনার কাজ।  এই পরিস্থিতিতে ঝুঁকি নিয়ে কেন শুটিং করলেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে যুবরাজ শামীম বলেনÑঝুঁকি থাকলেও যথাযথ নিরাপত্তা নিয়েই শুটিং করেছি। আর ‘হাজত’ সিনেমার গল্প একটি চরিত্রকে কেন্দ্র করে এগিয়েছে। যদিও কয়েকটি দৃশ্যে কয়েকজন সাপোর্টিং চরিত্রে অভিনয় করেছেন। চারজনের ছোট শুটিং ইউনিট ছিল। তাই সবমিলিয়ে শুটিংয়ের সময় আমরা খুব বেশি জটিলতার সম্মুখীন হইনি। নির্মাণের পাশাপাশি গল্প, চিত্রনাট্যও রচনা করেছেন যুবরাজ শামীম। এতে আরো অভিনয় করেছেনÑবাদশা, দুলাল, সোহাগী, স্বপন। চিত্রগ্রহণে ছিলেন আনন্দ সরকার এবং যুবরাজ শামীম।

 

Share.

Leave A Reply