ব্যাটিং ধস থামানোর উপায় খুঁজছেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক

0

এফএনএস স্পোর্টস: প্রথম ওয়ানডেতে বিপর্যয় ইনিংসের শুরু থেকে মাঝামাঝি, দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মাঝ থেকে শেষে। টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ছিল প্রায় একই চিত্র। ইংল্যান্ড সফরে ব্যাটিং ধস চলছেই অস্ট্রেলিয়ার। কিভাবে এটি থামানো যায়, অ্যারন ফিঞ্চের কাছে তা এখন ‘মিলিয়ন ডলারের’ প্রশ্ন। ব্যাটিং ধস থামানোর উপায় খুঁজছেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জয়ের পথে থাকা অস্ট্রেলিয়া হেরে গেছে আচমকাই পথ হারিয়ে। ২৩২ রান তাড়ায় একপর্যায়ে তাদের রান ছিল ২ উইকেটে ১৪৪। কিন্তু এরপর ৩ রানের মধ্যে হারায় তারা ৪ উইকেট। শেষ পর্যন্ত গুটিয়ে গেছে ২০৭ রানে। প্রথম ওয়ানডেতে ১২৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়েছিল তারা। এরপর মিচেল মার্শ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের জুটি উদ্ধার করেছিল তাদের। এর আগে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ছিল একইরকম দশা। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ১৬৩ রান তাড়ায় উদ্বোধনী জুটিতেই ১১ ওভারে ৯৮ তুলে ফেলেছিল অস্ট্রেলিয়া। পরে সেই ম্যাচও তারা হেরে বসে। শেষ টি-টোয়েন্টিতে রান তাড়ায় মসৃণ পথচলায় হুট করেই হোঁচট খায় তারা মাঝের ওভারগুলোয় দ্রুত ৪ উইকেট হারিয়ে। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে রোববার দ্বিতীয় ওয়ানডেতে হারার পর ফিঞ্চের কাছে তাই প্রশ্ন ছুটে গেল, এই ধস ঠেকানোর পথ কি? ফিঞ্চ বললেন, তিনিও উত্তর খুঁজে ফিরছেন। “ এটা তো মিলিয়ন ডলার প্রশ্ন। তবে এটুকু নিশ্চিত, আমরা আমাদের পরিকল্পনায় শতভাগ  থাকতে পারছি না। গোলমাল করে ফেলছি ভাবনায়।” এই ম্যাচের উইকেট অবশ্য বেশ কঠিন ছিল। প্রথম ম্যাচের উইকেটেই খেলা হয়েছে। মন্থর ছিল বেশ, শট খেলা ছিল কঠিন। বিশেষ করে, নতুন ব্যাটসম্যানের জন্য মানিয়ে নেওয়া সহজ ছিল না। অস্ট্রেলিয়ার সহ-অধিনায়ক প্যাট কামিন্স ম্যাচ শেষে বলছিলেন, ‘টেস্ট ম্যাচের চতুর্থ-পঞ্চম দিনের মতো উইকেট।” তবে উইকেটকে অজুহাত দিতে চাইলেন না ফিঞ্চ। “ আমরা জানতাম, নতুন ব্যাটসম্যানদের জন্য এই উইকেটে খেলা কঠিন হবে। উইকেট অবশ্যই সহজ ছিল না। তবে তার পরও আমরা হতাশ। কন্ডিশন কঠিন ছিল, কিন্তু এই ধসের কোনো অজুহাত হয় না। আমাদের সুযোগ ছিল রান তাড়ায় জয়ের, আমরাই পারিনি।” ফিঞ্চ নিজেও সেই ধসের অংশ। তৃতীয় উইকেটে মার্নাস লাবুশেনের সঙ্গে তার ১০৭ রানের জুটিতেই জয়ের পথে ছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু পরপর দুই ওভারে ফিরে যান লাবুশেন ও মিচেল মার্শ। এরপর ভরসা ছিলেন ফিঞ্চ। দায়িত্ব নিয়েই খেলছিলেন। কিন্তু তিনি ৭৩ রান করে বোল্ড হয়ে যান ক্রিস ওকসের বল ভুল লাইনে খেলে। অস্ট্রেলিয়া পারেনি সেই ধাক্কা সামাল দিতে।

Share.

Leave A Reply