বোলিংয়ে মুগ্ধ করলেন অ্যান্ডারসন

0

এফএনএস স্পোর্টস: কদিন পরই দুজন হবেন প্রবল প্রতিপক্ষ। দুই দলের পেস আক্রমণের মূল অস্ত্র তারা দুজন। তবে মাঠের লড়াই শুরুর আগে একজন কেবলই আরেকজনের ভক্ত। ক্যারিবিয়ান ফাস্ট বোলার কেমার রোচ বলছেন, ইংলিশ পেসার জিমি অ্যান্ডারসনের বোলিং মুগ্ধ হয়ে দেখেন তিনি। আগামী বুধবার শুরু হবে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেস্ট সিরিজ। দুই দলের সাফল্য অনেকটা নির্ভর করবে অ্যান্ডারসন ও রোচের পারফরম্যান্সের ওপর। দুজনের সামনেই আছে মাইলফলকের হাতছানি। টেস্ট ইতিহাসের প্রথম পেসার হিসেবে ৬০০ উইকেট ছুঁতে অ্যান্ডারসনের প্রয়োজন আর ১৬ উইকেট। রোচের ২০০ উইকেট হতে লাগবে আর ৭টি। তিনি পারলে ২৬ বছর পর ২০০ টেস্ট উইকেটের মাইলফলক ছোঁবেন কোনো ক্যারিবিয়ান বোলার। পরিসংখ্যানে যেমন দুজনের তুলনা চলে না, চলে না আরও অনেক বাস্তবতায়ও। ইএসপিএনক্রিকইনফোর সঙ্গে সাক্ষাৎকারে রোচ নিজেই জানালেন, তিনি অ্যান্ডারসনের বড় ভক্ত। “আমি জেমস অ্যান্ডারসনের অনেক বড় ভক্ত। তার স্কিল এত উঁচু মানের! তার ধারাবাহিকতা অসাধারণ। যেভাবে তিনি নিজেকে ফিট রেখে এত লম্বা সময় খেলে চলেছেন, ইংল্যান্ডের জন্য ও বিশ্বজুড়ে ফাস্ট বোলিংয়ের জন্য তিনি যা করেছেন, সবই অসাধারণ। তার ভিডিও আমি অনেক দেখি। কোনো একদিন তার মতো হতে পারলে দারুণ লাগবে।” উইকেট সংখ্যায় তো বটেই, ম্যাচ খেলার দিক থেকেও সবার ওপরে অ্যান্ডারসন। দেড়শ টেস্ট খেলা ইতিহাসের একমাত্র বিশেষজ্ঞ বোলার তিনি। রোচের স্বপ্ন, অ্যান্ডারসনের মতো কিছু করে দেখানো। “যেভাবে তিনি দুই দিকে বল সুইং করান এবং লাইন-লেংথে যতটা ধারাবাহিকৃ(দেখতে ভালো লাগে)। আমরা সবাই জানি, ফাস্ট বোলিং খুবই কঠিন কাজ। শরীরের ওপর অনেক ধকল যায়। দেড়শর বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন মানে তিনি দুর্দান্ত করেছেন। আমি অবশ্যই চাই, তার মতো কিছু করতে। আশা করি, তার কিছু অর্জনের কাছাকাছি যেতে পারব।” এই ইংল্যান্ড দলের আরেকজনেরও বড় ভক্ত রোচ, জানালেন তার কথাও। “আমি বেন স্টোকসের বড় ভক্ত। দুর্দান্ত ক্রিকেটার সে। দারুণ উদ্যমী, প্রাণশক্তিতে ভরপুর। ব্যাটিং হোক বা বোলিং, সে প্রচ- আত্মবিশ্বাসী। অধিনায়ক হিসেবে সে কেমন করে, এটা অবশ্য কৌতূহল জাগানিয়া হবে। প্রথমবার সে নেতৃত্ব দিতে যাচ্ছে। তবে আমি নিশ্চিত, ইংল্যান্ড খুব ভালো হাতেই পড়েছে। আমি তাকে শুভ কামনা জানাই।” সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে নিয়মিত অধিনায়ক জো রুট ছুটিতে যাওয়ায় এই সিরিজের প্রথম টেস্টে ইংল্যান্ডকে নেতৃত্ব দেবেন স্টোকস।

Share.

Leave A Reply