বেড়ায় ইউএনওকে লাঞ্ছিত করার প্রকৃত বিষয় ঘিরে সংবাদ সম্মেলনে ব্যাখ্যা দিলেন বহিষ্কৃত পৌর মেয়র

0

স্টাফ রিপোর্টার : উন্নয়ন সমন্বয় সভায় বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসিফ আনার সিদ্দিকীকে লাঞ্ছিত করার বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন বহিষ্কৃত পৌর মেয়র আব্দুল বাতেন।

গতকাল বুধবার দুপুরে বেড়া পৌর কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল বাতেন বলেন, গত ১২ অক্টোবর উপজেলা সমন্বয় সভায় ইউএনওকে লাঞ্ছিত করার বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে সংবাদ প্রচার ও প্রকাশ হয়েছে তা সঠিক নয়। সংবাদ সম্মেলনে মেয়র বলেন, বেড়া উপজেলার নগরবাড়ী-নটাখোলা ও কাজীরহাট আমদানি-রপ্তানি ঘাট দুটি বিধি মোতাবেক উপজেলা পরিষদের আওতাভূক্ত। উপজেলা পরিষদেরই ঘাট দুটির রাজস্ব আদায়ের কথা। কিন্তু সম্প্রতি পাবনা জেলা প্রশাসন তা উপেক্ষা করে ঘাট দুটি থেকে রাজস্ব আদায়ের (খাস আদায়) উদ্যোগ নেয়। এ বিষয়টি বেড়াবাসীর স্বার্থসংশ্লিষ্ট উল্লেখ করে তিনি বলেন বিষয়টি ২২ সেপ্টেম্বরের উপজেলা পরিষদের মাসিক সভায় অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। পরবর্তী সভায়ও এটি অন্তর্ভূক্ত করার কথা। অথচ ঘটনার দিন অর্থাৎ গত সোমবার (১২ অক্টোবর) উপজেলা পরিষদের মাসিক সভায় এ বিষয়টি আলোচনা থেকে কৌশলে বাদ দেওয়া হয়। এতে তিনি বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করেছেন ও আলোচনায় অন্তর্ভূক্ত করার কথা বলেছেন মাত্র। সেখানে ইউএনওকে শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত করার কোনো ঘটনা ঘটেনি। তিনি বলেন, জেলা প্রশাসক বা ইউএনও কারো সাথে আমার সম্পর্কের অবনতি নেই। এই ইস্যুটাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টা হয়েছে। তিনি সংবাদকর্মীদের মাধ্যমে জেলা প্রশাসকের প্রতি গত ৪ বছরের বেড়া উপজেলার ইজারাকৃত অর্থ উপজেলার উন্নয়নের স্বার্থে উপজেলা পরিষদের রাজস্ব তহবিলে দেয়ার অনুরোধ জানান। পৌর মেয়রের পদ থেকে বহিষ্কারকে স্বাগত জানিয়ে তদন্তের আহবান জানান আব্দুল বাতেন। বলেন, এখন একটা সুযোগ সৃষ্টি হলো, তদন্ত হলে সকল কিছু বের হয়ে আসবে। তদন্ত করে দেখা হোক, আমি ঠিক জায়গাতে আছি কিনা। সংবাদ সম্মেলনে পাবনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান, সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদসহ জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন গণমাধ্যমের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Share.

Leave A Reply