পুনর্বিচারের মুখে দ. কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট, বাড়তে পারে কারাদ-

0

এফএনএস: সাজাভোগরত দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাই-এর মামলা পুনর্বিচারের জন্য নিম্ন আদালতে পাঠানোর রায় দিয়েছে দেশটির শীর্ষ আদালত। দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের দায়ে ওই বর্তমানে ২৫ বছরের কারাদ- ভোগ করছেন তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার শীর্ষ আদালতের রায়ে বলা হয়েছে, ঘুষ গ্রহণের দায়ে তার ভিন্ন সাজা হওয়া উচিত। দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, পুনর্বিচারে দোষী প্রমাণিত হলে সাজার মেয়াদ বাড়তে পারে দেশটির প্রথম নারী প্রেসিডেন্টের। ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন সাবেক সামরিক শাসক পার্ক চং হে-এর মেয়ে পার্ক জিউন হাই। দুর্নীতির অভিযোগ ওঠার পর ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে দক্ষিণ কোরিয়ার আইন প্রণেতারা তাকে অভিশংসিত করার পক্ষে রায় দেন। তখন থেকেই প্রেসিডেন্ট হিসেবে তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে রাখা হয়েছিল। ২০১৭ সালের ১০ মার্চ পার্ক জিউন হাইকে অভিশংসিত করা নিয়ে পার্লামেন্টের সিদ্ধান্তটি বহাল রাখে সাংবিধানিক আদালত। চূড়ান্তভাবে ক্ষমতাচ্যুত হন তিনি। এরপর তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পার্ক জিউন এর বিরুদ্ধে অভিযোগ তার বন্ধু চোই সুন-সিল প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সম্পর্কের সুবাধে অর্ধশতাধিক প্রতিষ্ঠান থেকে অনুদানের নামে ৬৫.৫ মিলিয়ন ডলার হাতিয়ে নেন। এরমধ্যে স্যামসাং এবং হুন্দাই-এর মতো কোম্পানিও রয়েছে। ওই অর্থ সন্দেহভাজন একটি ফাউন্ডেশনের নামে নেওয়া হয়। পরে তিনি সেখান থেকে আর্থিকভাবে লাভবান হন। পার্ক জিউনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি বন্ধুকে ওই অর্থ তুলতে সাহায্য করেন। ২০১৮ সালে তার বিরুদ্ধে ২৫ বছরের কারাদ-ের রায় ঘোষণা করে সিউলের আদালত।

গতকাল বৃহস্পতিবার দক্ষিণ কোরিয়ার সুপ্রিম কোর্টের রায়ে বলা হয়েছে, সিউলের আদালতে পার্ক জিউনের বিচারে আইনের ব্যত্যয় ঘটেছে। আদেশে বলা হয়েছে, পার্ক জিউনের বন্ধুর মেয়েকে স্যামসাংয়ের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ২৮ লাখ মার্কিন ডলার মূল্যের যে তিনটি ঘোড়া দিয়েছিল তাও ঘুষ হিসেবে বিবেচনা করতে হবে। দীর্ঘ সময় ধরে কারাগারে থাকলেও বেশিরভাগ শুনানির সময়ই আদালতে উপস্থিত হতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন পার্ক জিউন হাই। গত বছরের এপ্রিলে দ- ঘোষণার সময়েও আদালতে অনুপস্থিত থেকেছেন তিনি। বরাবরই এই সাবেক প্রেসিডেন্ট নিজেকে নির্দোষ দাবি করে এসেছেন আর বলেছেন এই বিচার রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

Share.

Leave A Reply