পাসালিচের হ্যাটট্রিকে সিরি-এ টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এলো আটালান্টা

0

এফএনএস স্পোর্টস: ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার মারিও পাসালিচের হ্যাটট্রিকে ধুকতে থাকা স্থানীয় প্রতিদ্বন্দ্বী ব্রেসিয়াকে ৬-২ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে আটালান্টা। আর দাপুটে এই জয়ে সিরি-এ টেবিলের দ্বিতীয় স্থান নিশ্চিত করেছে ক্লাবটি। জিয়ান পিয়েরো গাসপেরিনির দল এই নিয়ে টানা ১৩ লিগ ম্যাচে অপরাজিত থাকলো। শীর্ষে থাকা জুভেন্টাসের থেকে এখন তাদের পয়েন্টের ব্যবধান মাত্র ছয়। ইন্টার মিলান ও ল্যাজিও আটালান্টার থেকে দুই পয়েন্ট পিছিয়ে পরের দুটি অবস্থানে রয়েছে। এবারের মৌসুমে এ পর্যন্ত গাসপেরিনির দল ৯৩টি গোল করেছে, যা আটবারের চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসের মোট গোলের থেকে ২৬টি বেশী। ম্যাচ শেষে উচ্ছ্বসিত গাসপেরিনি বলেছেন, ‘প্রতিপক্ষকে এভাবে ঘায়েল করার কোন ইচ্ছে আমাদের ছিলনা। আমরা কেবলমাত্র আমাদের স্বাভাবিক খেলাটাই খেলেছি। ইতোপুর্বে আমরা গত বছর লিগে সেরা আক্রমনভাগের প্রমান দিয়েছিলাম। এবার সেটাকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবার চেষ্টা করেছি। বেশ কয়েকটি ম্যাচে আমরা অনেকগুলো গোল করেছি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলাটা আমাদের দারুনভাবে সহযোগিতা করেছে। আমরা নিজেদের আরো বেশী উন্নত করার সুযোগ পেয়েছি। শেষ আটে আমরা পিএসজি’র বিপক্ষে মাঠে নামতে প্রস্তুতি নিচ্ছি। কিন্তু অবশ্যই শেষ পর্যন্ত সিরি-এ লিগেও লড়াই চালিয়ে যেতে চাই। আমি মনে করি আগামী ১২ আগস্ট চ্যাম্পিয়ন্স লিগের জন্য সেরা প্রস্তুতিটা হবে শেষ পাঁচটি লিগ ম্যাচে নিজেদের সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা করা।’ হাই স্কোরিং আটলান্টা ও ১৯তম স্থানে থাকা ব্রেসিয়ার মধ্যে ম্যাচটি ছিল করোনাভাইরাসে সবচেয়ে আক্রান্ত দুটি প্রতিবেশী শহরের লড়াই। ম্যাচ শুরুর আগে করোনায় মৃত্যুবরণ করা প্রত্যেকের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এবারের মৌসুমে ১৭টি গোল করা আটালান্টার সর্বোচ্চ গোলদাতা লুইস মুরিয়েল পুরো ম্যাচ স্ট্যান্ডে বসে উপভোগ করেছেন। কয়েকদিন আগে বাসায় পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পাবার পর এই কলম্বিয়ান হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। কিন্তু তার অনুপস্থিতি কোনভাবেই বুঝতে দেননি পাসালিচ। ম্যাচের দুই মিনিটের মধ্যেই রুসলান মালিনোভিস্কির ক্রস থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন এই ক্রোয়েট মিডফিল্ডার। আটালান্টা ডিফেন্ডার মাত্তিয়া কালডারার ভুলে আর্নেস্টো টোরেগ্রসা আট মিনিটেই ব্রেসিয়ার পক্ষে সমতা ফেরান। কিন্তু মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে মার্টিন ডি রুন, মালিনোভিস্কি ও ডুভান জাপাটার কল্যাণে স্বাগতিকরা ৪-১ গোলে এগিয়ে যায়। এই তিনটি গোল এসেছে মাত্র পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে। দ্বিতীয়ার্ধেও আটালান্টা ছেড়ে কথা বলেনি। ৫৫ মিনিটে আবারো মালিনোভিস্কির সহায়তায় পাসালিচ ব্রেসিয়া গোলরক্ষক লোরেনজো আনড্রেনাচ্চিকে পরাস্ত করেন। তিন মিনিট পর এব্রিমা কুলির ক্রস থেকে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন এই ক্রোয়েট। এই নিয়ে মৌসুমে নবম গোল করলেন পাসালিচ। এর মধ্যে পাঁচটিই ব্রেসিয়ার বিপক্ষে। ক্যারিয়ারের প্রথম হ্যাটট্রিকের দেখা পাওয়া পাসালিচ বলেছেন, ‘এটা আমার ক্যারিয়ারের সেরা মুহূর্ত। এখনো আমাদের পাঁচটি ম্যাচ বাকি আছে। এর চেয়েও ভাল কিছু করতে চাই। আমরা এবারের লিগে ৯০টিও বেশী গোল করেছি। জুভেন্টাসের বিপক্ষে ২-২ গোলে ড্রয়ের পর আমরা এটাই প্রমান করেছি যে আমরাও শক্তিশালী দল।’ ৮৩ মিনিটে নিকোলাস স্পালেকের গোলে ব্যবধান কমিয়েছে ব্রেসিয়া। তবে আগামী মৌসুমে সিরি-বি’তে যাওয়ার অনেকটাই দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে ব্রেসিয়া।

Share.

Leave A Reply