জাতিসংঘের প্রতিবেদন সবচেয়ে বেশি আটক করেও মাদকপাচারের জনপ্রিয় রুট তুরস্ক

0

এফএনএস বিদেশ: মাদকদ্রব্য আটক করার ব্যাপারে সবচেয়ে সফল দেশ হয়েও তুরস্ক এখনো মাদকদ্রব্য পাচারের জনপ্রিয় রুট হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। জাতিসংঘের মাদক ও অপরাধবিষয়ক দফতরের (ইউএনওডিসি) প্রকাশিত ওয়ার্ল্ড ড্রাগ রিপোর্ট ২০২০ মাদকের নিয়ন্ত্রণে তুরস্কের সাফল্যের কথা তুলে ধরা হয়েছে। তবে দেশটি ইউরোপে মাদক চোরাচালানের জন্য একটি জনপ্রিয় পথ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলেও সতর্ক  করে দেওয়া হয়েছে।খবর ডেইলি সাবাহ’র। ২০১৮ সালের তথ্যের ভিত্তিতে তৈরি এই প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে,  ওই বছর যে কোনো  দেশের চেয়ে বেশি মাদক আটক করা হয়েছিল ইরানে। এর পরের দেশগুলো হচ্ছে তুরস্ক, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং বেলজিয়াম। তুরস্ক ২০১৮ সালে .৭ টন আফিম, .৮ টন মরফিন এবং ১৯ টন হেরোইন জব্দ করেছে। তবে  ইরান বিশ্বব্যাপী মোট আটকের অর্ধেকেরও বেশি আফিম আটক করেছে। তুরস্ক আটক করেছে মাত্র ৯ ভাগ। তবে দেশটি এশিয়ার বাইরের অঞ্চলে ৬২ ভাগ হেরোইন ও মরফিন জব্দ করেছে।  তবুও দেশটি পাচারের দিক থেকে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় রুট হিসেবে বিবেচিত। এই রুটটি আফগানিস্তান থেকে পশ্চিম ও মধ্য ইউরোপে আফিম পাচারের জন্য ব্যবহৃত হয়। এটাই হলো হেরোইন পাচারে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ‘বলকান রুট’। প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৮ সালে বলকান রুটে সবচেয়ে বেশি মাদক জব্দ করেছে তুরস্ক ও ইরান। ইরান জানিয়েছে, ২০১৮ সালে তারা যে মাদক আটক করেছে, তাতে ৭৫ ভাগ মরফিন এবং একই পরিমাণ হেরোইন পাকিস্তানের মাধ্যমে পাচার করা হয়েছিল। বাকিগুলো পাচার করা হয়েছিল আফগানিস্তান থেকে।

Share.

Leave A Reply