ছয় দশক পর হোয়াইট হাউজে তিব্বতের রাজনৈতিক নেতা

0

এফএনএস বিদেশ: আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে শুক্রবার (২০ নভেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের হোয়াইট হাউজ সফর করেছেন তিব্বতের নির্বাসিত সরকারের প্রধান লোবসান সানগাই। ছয় দশক পর তিব্বতের কোনও রাজনৈতিক নেতার প্রথম হোয়াইট হাউজ সফর এটি। কেন্দ্রীয় তিব্বতীয় প্রশাসন (সিটিএ) এর বিবৃতিকে উদ্ধৃত করে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।   চীনের দুর্গম এবং মূলত বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বত একটি স্বশাসিত অঞ্চল। দীর্ঘ দিন থেকেই সেখানকার বাসিন্দারা সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় স্বাধীনতা হরণ হওয়ার অভিযোগ করে আসছে। বেইজিং বলছে, হিমালয়ের পার্বত্য এলাকাটির উন্নতি ও সমৃদ্ধির চেষ্টা চালানো হচ্ছে। বেশ কিছুদিন ধরে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে যেসব ইস্যুতে বিবাদ চলছে, তার মধ্যে তিব্বত একটি। গত জুলাইয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও অভিযোগ করেন, বেইজিং তিব্বতীয়দের মানবাধিকার হরণ করছে। ওয়াশিংটন তিব্বতের ‘অর্থপূর্ণ স্বায়ত্তশাসন’ সমর্থন করে বলেও জানান তিনি। তখন থেকে বেইজিং অভিযোগ করে আসছে, যুক্তরাষ্ট্র চীনকে বিভাজিত করছে। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র সরকার তিব্বত ইস্যুসংক্রান্ত নতুন বিশেষ সমন্বয়ক হিসেবে রবার্ট ডেস্ট্রোকে নিয়োগ দিয়েছে। নতুন নিয়োগ পাওয়া এ সমন্বয়কের সঙ্গে বৈঠক করতে কেন্দ্রীয় তিব্বতীয় প্রশাসনের (সিটিএ) প্রেসিডেন্ট লোবসান সানগাইকে হোয়াইট হাউজে আমন্ত্রণ জানানো হয়। শুক্রবার সিটিএ’র এক সংবাদ বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এ নজিরবিহীন বৈঠক সম্ভবত যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের সঙ্গে সিটিএ-র সম্পর্কের ক্ষেত্রে আশাবাদের সুর তৈরি করবে। সামনের বছরগুলোতে এ সম্পর্ক আরও বেশি করে আনুষ্ঠানিক রূপ পাবে।’ রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, লোবসানের সঙ্গে ডেস্ট্রোর এ বৈঠক চীনকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আরও ক্ষুব্ধ করে তুলতে পারে।

Share.

Leave A Reply