কাশ্মিরে অতিরিক্ত ১০ হাজার নিরাপত্তা সদস্য পাঠিয়েছে ভারত

0

এফএনএস ডেস্ক: কাশ্মিরে আধাসামরিক বাহিনীর অতিরিক্ত দশ হাজার সদস্য মোতায়েন করেছে ভারত। সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান জোরালো করতে অতিরিক্ত এই সেনা পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে দিল্লি। দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল রাজ্যটিতে দুই দিনের সফর শেষ করে আসার পর এসব সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নিজস্ব সূত্রের বরাতে ভারতের সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, কাশ্মিরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দোভাল। কাশ্মির নিয়ে দুই প্রতিবেশি ভারত ও পাকিস্তানের বিরোধ দীর্ঘদিনের। সেখানকার সশস্ত্র বিদ্রোহী সংগঠনগুলোর কেউ কেউ সরাসরি স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলনরত। কেউ কেউ আবার কাশ্মিরকে পাকিস্তানের অঙ্গীভূত করার পক্ষে। তবে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ কাশ্মিরের জাতিমুক্তি আন্দোলনকে বিভিন্ন জঙ্গিবাদী তৎপরতার থেকে আলাদা করে শনাক্ত করে না। সন্দেহভাজন জঙ্গি নাম দিয়ে বহু বিদ্রোহীর পাশাপাশি বেসামরিকদের হত্যার অভিযোগ রয়েছে ভারতীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে। কাশ্মির প্রশ্নে সমগ্র ভারতীয় স্টাবলিশমেন্টের দৃষ্টিভঙ্গিতেই সেখানকার সমস্যাকে ‘বিচ্ছিন্নতা আর জঙ্গিবাদের’ সমস্যা আকারে দেখা হয়ে থাকে। কাশ্মির পুলিশের মহাপরিদর্শক দিলবাগ সিং জানিয়েছেন উত্তর কাশ্মিরে মোতায়েনের জন্য তারা এরইমধ্যে এসব নিরাপত্তা সদস্যদের চাহিদাপত্র দিয়ে রেখেছেন। দিল্লির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক আদেশে বলা হয়েছে, নিরাপত্তা বাহিনীর অতিরিক্ত এইসব সদস্য কাশ্মিরের সন্ত্রাসবিরোধী কার্যক্রম জোরালো করার পাশাপাশি আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি বজায় রাখতে কাজ করবে।

এনডিটিভি জানিয়েছে, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে তুলে নিয়ে অতিরিক্ত এসব সদস্যকে কাশ্মিরে মোতায়েন করা হবে। দিলবাগ সিং জানান, ‘উত্তর কাশ্মিরে সেনা সংখ্যা কম রয়েছে সেকারণে আমাদের অতিরিক্ত সেনা প্রয়োজন। ১০০ কোম্পানি সেনা তুলে নেওয়া হবে। আমরা এই পরিমাণ সেনা চেয়েছি’। প্রতিটি কোম্পানিতে প্রায় একশো জন করে সেনা থাকে। সম্প্রতি অমরনাথের তীর্থ যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য কাশ্মিরে প্রায় ৪০ হাজার আধাসামরিক বাহিনীর সদস্য পাঠায় কেন্দ্র।

Share.

Leave A Reply