ইংল্যান্ড দল জানুয়ারিতেই পাকিস্তানে যেতে পারে

0

এফএনএস স্পোর্টস: ২০০৫ সালের পর পাকিস্তান সফরে যায়নি ইংল্যান্ড। পাকিস্তানের হোম সিরিজ খেলেছে তারা সংযুক্ত আরব আমিরাতে। আইসিসির এফটিপি সূচি অনুযায়ী, ২০২২ সালে পাকিস্তান সফরে যাওয়ার কথা ইংলিশদের। তবে সামনে বছরের জানুয়ারিতেই তাদের দেখা যেতে পারে পাকিস্তানে। ২০২১ সালের শুরুতে সীমিত ওভারের সংক্ষিপ্ত সূচিতে দেশটিতে যাওয়ার আমন্ত্রণ পেয়েছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কা দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর প্রায় ১০ বছর টেস্ট ক্রিকেট বন্ধ ছিল পাকিস্তানে। এর আগে অবশ্য দেশের মাটিতে বেশ কয়েকটি সীমিত ওভারের সিরিজ খেলেছে তারা। তবে ইংল্যান্ড গিয়েছিল শেষবার ২০০৫ সালে। দীর্ঘ অপেক্ষা সামনের বছর শেষ হতে পারে। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) আমন্ত্রণে ইতিবাচক সাড়াই দিয়েছে ইসিবি। তারা এখন ‘পরিস্থিতি বিবেচনা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত’ জানাবে। পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরে ২০১৫ সালে, প্রথম দেশ হিসেবে দেশটিতে সফরে যায় জিম্বাবুয়ে। এরপর শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও বিশ্ব একাদশ বেশ কয়েকটি টি-টোয়েন্টি খেলার পর ২০১৯ সালে শ্রীলঙ্কা পূর্ণাঙ্গ সফর করে পাকিস্তানে। এরপর বাংলাদেশও টেস্ট সিরিজ খেলেছে সেখানে। এই অবস্থায় এবার ইংল্যান্ডকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে পিসিবি। ইংলিশ ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা ইসিবি এক বিবৃতিতে নিশ্চিত করেছে বিষয়টি, ‘আমরা ২০২১ সালের জানুয়ারিতে পাকিস্তানে সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলার আমন্ত্রণ পেয়েছি। পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরাকে আমরা স্বাগত জানাই এবং এই ব্যাপারে তাদের সাহায্য করতে আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ।’ তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানোর আগে ইসিবি নিরাপত্তা ও করোনা পরিস্থিতি ভালোভাবে দেখে নিতে চায়, ‘আসলে এই মুহূর্তে যেকোনও সফরের আগে আমাদের নিরাপত্তা ও খেলোয়াড়দের মঙ্গলের বিষয়টি খতিয়ে দেখতে হবে। কোভিড-১৯ জৈব সুরক্ষা পরিবেশ কীভাবে পরিচালিত হবে এবং খেলোয়াড়দের ঘিরে প্রস্তাবিত নিরাপত্তা স্তর কতটা, সেগুলো যাচাই করে দেখতে হবে। তাছাড়া ইংল্যান্ড পুরুষ দলের ব্যস্ত সূচিও রয়েছে।’ করোনা বিরতির পর প্রথম দেশ হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরিয়েছে ইংল্যান্ড। ২০২০ সালের ইংলিশ সামারে পাকিস্তানও সফর করে এসেছে। তিন টেস্টের সঙ্গে খেলেছে তিন টি-টোয়েন্টি।

Share.

Leave A Reply